মৌলভীবাজারের অধিকাংশ ফার্মেসীর ড্রাগ লাইসেন্স মেয়াদ উত্তীর্ণ

সৈয়দ মুস্তাক আহমদ নুরী : মৌলভীবাজার জেলা সদরসহ বিভিন্ন উপজেলায় অধিকাংশ ফামের্সীর ড্রাগ লাইসেন্স মেয়াদ উত্তীর্ণ। এমনকি কোন কোন লাইসেন্সের মেয়াদ ২০ বছর পূর্বেই মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে।

ঔষধ প্রশাসনের ওয়েব সাইটে রেড মার্ক চিহ্নিত বেশ কিছু ফামের্সীর ড্রাগ লাইসেন্স নবায়ন করা হলেও, ঔষধ প্রশাসনের স্থানীয় কর্মকর্তার গাফলাতির কারণে ওয়েব পোর্টালে আপডেট দেয়া হয়নি।

ঔষধ প্রশাসন মৌলভীবাজারের http://dgda.moulvibazar.gov.bd/ নামে ওয়েব পোর্টাল থাকলেও কোন তথ্য নেই। কেন তথ্য আপলোড হচ্ছেনা এমন প্রশ্নের কোন জবাব নেই স্থানীয় ড্রাগ সুপারের কাছে।

অভিযোগ রয়েছে, স্থানীয় ঔষধ প্রশাসনের অব্যবস্থাপনা, গাফলাতি এবং মাসুহারা আদায়ের কারণেই দীর্ঘদিনের মেয়াদ উত্তীর্ণ ড্রাগ লাইসেন্স নবায়ন হচ্ছেনা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ঔষধ ব্যবসায়ী বলেন, ড্রাগ লাইসেন্স নবায়ন না করার ফলে সরকার হারাচ্ছে রাজস্ব। তেমনী কতিপয় লোকের পকেট ভারী হচ্ছে। ড্রাগ লাইসেন্স বিহীন ঔষধের ব্যবসা পরিচালনা করতে উৎসাহিত হচ্ছে।

প্রতি দু’বছর অন্তর অন্তর নির্দিষ্ট ফি আদায়ের মধ্য দিয়ে লাইসেন্স নবায়ন করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। লাইসেন্স নবায়নকালে, লাইসেন্সের মালিক তার প্রতিষ্ঠানের নবায়নকৃত ট্রেড লাইসেন্স, ফার্মাসিস্টের সার্টিফিকেট, এনআইডি কার্ডের ফটোকপি এবং ফার্মাসিস্টের ২ বছর মেয়াদী চুক্তিপত্রনামায় স্বাক্ষর থাকার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। কিন্তু উৎকোচের বিনিময়ে তা যাচাইবাচাই না করেই লাইসেন্স নবায়ন করা হয়ে থাকে বলেও অভিযোগ রয়েছে।

ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের হিসেব মতে মৌলভীবাজার জেলায় ২ হাজার ২০৫টি ড্রাগ লাইসেন্স নিয়ে ঔষধের ব্যবসা পরিচালনা করছেন। তবে ড্রাগ লাইসেন্স নবায়ন হয়নি ৯০৩টির।

১০ বছরের অধিককাল যাবৎ ড্রাগ লাইসেন্স নবায়ন হয়নি এমন ফামের্সীর ড্রাগ লাইসেন্সের সংখ্যা বড়লেখা উপজেলায় ৩৭টি, জুড়িতে ৯টি, কমলগঞ্জে ১৮টি, মৌলভীবাজার সদরে ৩৬টি, রাজনগরে ৯টি, শ্রীমঙ্গলে ২৩টি এবং কুলাউড়াতে ৫৪টি।
মৌলভীবাজার সদরে ৫৯৭টি ড্রাগ লাইসেন্সের মধ্যে ২৪১টি মেয়াদ উত্তীর্ণ, বড়লেখায় ২৭২টির মধ্যে ১৫৩টি, জুড়িতে ১৩২টির মধ্যে ৫৬টি, কমলগঞ্জে ২৮৫টির মধ্যে ১২০টি, কুলাউড়ায় ৩৬১টির মধ্যে ১৩৯টি, রাজনগরে ২৩৬টির মধ্যে ৭১টি এবং শ্রীমঙ্গলে ৩২২টির মধ্যে ১২৩টি লাইসেন্স মেয়াদ উত্তীর্ণ।

মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়ায় অবস্থিত Salim Ullah Medical Hall নামের ফার্মেসীর ড্রাগ লাইসেন্স নাম্বার (MOU-01-A/B) মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে ২০০৬ সালের ১১ ডিসেম্বর। অপর দিকে শ্রীমঙ্গল উপজেলায় অবস্থিত The Ahmadia Pharmacy নামের ড্রাগ লাইসেন্স নাম্বার ((MOU-00002-A/B) মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে ২০২৩ সালের ৯ মার্চ।

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে অবস্থিত Zarna Drug House ফার্মেসীর ড্রাগ লাইসেন্স নাম্বার (MOU-145-A/B) মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে ২০০০ সালের ১১ জুলাই।

ঔষধ প্রশাসনের ওয়েব সাইটে মৌলভীবাজার জেলার ফামের্সীর তালিকানুযায়ী প্রথম ২০টি ড্রাগ লাইসেন্সের মধ্যে ১২টি ইতোঃমধ্যে মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে।

ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মৌলভীবাজার ঔষধ তত্ত্বাবধায়কের কার্যালয়ের তত্ত্বাবধায়ক সিরাজুম মুনিরা মুঠোফোনে জানান, তিনি আসারপর থেকে যেসব লাইসেন্স নবায়ন হচ্ছে, সেগুলো ওয়েব সাইটে আপলোড করা হচ্ছে। তবে তিনি আসার পূর্বে কি হয়েছে, তা তাহার জানা নয়।

লাইসেন্সবিহীন ঔষধের দোকানের সংখ্যা তার জানা নয় এবং নতুন লাইসেন্সের জন্য অতিরিক্ত টাকা নেয়া হচ্ছে না। অফিসের কোন লোক যদি জড়িত থাকে তাহলে প্রয়োজনী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান।

সম্পাদনায়: মেহেদী/ জ্যোৎস্না/ নুরী

Share Button