বাগানের ভিডিও ইউটিউবে আপলোড করেই মাসে লাখ টাকা!

ডেস্ক রিপোর্ট: নিতান্ত ঘরোয়াভার সংসারের কাজ সামলে বাড়ির চারপাশের বাগান পরিচর্যায় ব্যস্ত থাকতেন। এ বাগানের ভিডিও আপলোড করে সেই তিনিই এখন লাখপতি। ঘরে বসে এত টাকা রোজগার করে সবার কাছে জলজ্যান্ত উদাহরণ যেন হয়ে উঠেছেন কেরালার এই নারী। নাম অ্যানি ইউজিন। কিন্তু কী ভাবে?

কেরালার কোচির ভিটিলায় স্বামী স্টিফেন এবং এক সন্তানের সঙ্গে থাকেন অ্যানি। ভালবাসতেন বাগানের পরিচর্যা। এ বাগানই যে তার নতুন পরিচিতি তৈরি করবে তা কল্পনাতেও ছিল না তার। প্রথম ভিডিয়ো পোস্ট করেন ২০১২ সালে। ‘গুয়াভা ইন কেরালা হোম’ নামে বাগানের পেয়ারা গাছের ভিডিও পোস্ট করেছিলেন তিনি।

ভিডিওর বিষয়বস্তু ছিল পেয়ারার উপকারিতা। প্রথম ভিডিওই চমকে দেয় অ্যানিকে। ৮ হাজার ৫০০ ভিউ এবং ৮টি উৎসাহমূলক মন্তব্য এসেছিল ওই পোস্টে। এর পরের ভিডিও ছিল ‘পিনাট বাটার ফ্রুট’, মাত্র এক দিনের মধ্যেই এটিও ৭ হাজার ৫০০ লাইক পড়ে এবং ৩১টা কমেন্ট আসে।

খুবই উৎসাহিত হন অ্যানি। এরপর তিনি অবিরাম ভিডিও বানাতে শুরু করেন।কখনও উপদেশ দেন, কী ভাবে ভাল গাছের চারা নার্সারি থেকে বেছে নেবেন। কখনও জানান, কী ভাবে বাড়িতে জৈব সার বানাবেন। এখন তার আয় প্রতি মাসে ১ লাখ টাকার বেশি। কোনো কোনো মাসে তাও ছাড়িয়ে যায়।

নিজের ইউটিউব চ্যানেলের নাম দিয়েছেন ‘কৃষি লোকাম’। তাঁর ইউটিউব চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবারের সংখ্যা এখন তিন লাখের বেশি। অনেক কৃষকও তার কাছে চাষবাসের পরামর্শ নেন। ইউটিউব কমেন্ট বক্সে গিয়ে তিনি প্রতিটা প্রশ্নের উত্তরও দেন। ইউটিউব চ্যানেল খোলার পিছনে অবদান রেখেছেন তার ভাই। সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার ভাইয়ের পরামর্শেই তিনি ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করতে শুরু করেন।

 

Share Button