নির্বাচনে অবাধ ও সুষ্ঠু ভোটগ্রহণের জন্য গণমাধ্যমের সহযোগিতা চেয়েছেন ঐক্যফ্রন্ট

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অবাধ ও সুষ্ঠু ভোটগ্রহণের জন্য গণমাধ্যমের সহযোগিতা চেয়েছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড.কামাল হোসেন। দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য গণমাধ্যমের সহযোগিতা প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেন সংবিধান প্রণেতা ও গণফোরাম সভাপতি।

শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর হোটেল লেকশোরে বিভিন্ন গণমাধ্যমের সম্পাদকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভা শেষে এসব কথা বলেন ড. কামাল। বৈঠকে সম্পাদকরা ঐক্যফন্টের নেতাদের বিভিন্ন মতামত দিয়েছেন। এদিকে ঐক্যফ্রন্টের নেতারা অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সম্পাদকদের কাছে সবধরনের সহযোগিতা চেয়েছেন।

ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা কামাল হোসেন বলেন, ‘অতীতের অভিজ্ঞতার আলোকে সম্পাদকরা আমাদের পরামর্শ দিয়েছেন। জনগণ যেন নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারেন সেটি জরুরি। নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানে সরকার ও বিরোধী দলের ভূমিকা রয়েছে। গণমাধ্যম সেই পথ দেখাতে পারে।’

এছাড়াও অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য নির্বাচনকালীন সরকারের কর্মকাণ্ডের দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে এবং সহযোগিতা করতে সংবাদপত্রের সম্পাদকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ড. কামাল হোসেন। ঐক্যফ্রন্টের মুখপত্র ও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের করতে প্রয়োজনীয় সকল সহযোগিতা সম্পাদকদের কাছে চাওয়া হয়েছে।’

ঐক্যফ্রন্টের প্রতিনিধি দলে নেতা ড. কামাল হোসেনে নেতৃত্বে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, আসম আব্দুর রব, গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, সুলতান মোহাম্মদ মনসুর এবং নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

সম্পাদকমণ্ডলীর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান, মানবজমিনের সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী, নিউএইজ পত্রিকার সম্পাদক নুরুল কবীর, আমাদের নতুন সময় সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খান, নিউজ টুডের সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন, সাপ্তাহিক বুধবার সম্পাদক আমির খসরু, ইনকিলাবের সহকারি সম্পাদক মুন্সি আব্দুল মান্নান, সাপ্তাহিক সম্পাদক গোলাম মোর্তজা, বাংলাদেশের খবরের ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক সৈয়দ মেজবাহ উদ্দিন, রয়টার্সের ঢাকা প্রধান সিরাজুল ইমলাম কাদির, এএফপির ঢাকা প্রধান শফিকুল আলম ও ঢাকা ট্রিবিউন সম্পাদক জাফর সোবহান। এছাড়াও বিভিন্ন গণমাধ্যমের সিনিয়র সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

Share Button