নার্সের পায়ে ধরেও কাজ হয়নি

শহর প্রতিবেদক: মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চিকিৎসা অবহেলায় এক শিশু মৃত্যুর অভিযোগ ওঠেছে। শনিবার বেলা ৩টা ৪৫ মিনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে বলে মেডিকেল ছাড়পত্রে উল্লেখ করা হয়। সাড়ে ৩ মাস বয়সী নিহত শিশু বুরহান মিয়া রাজনগর উপজেলার মশাজান গ্রামের হত দরিদ্র মুক্তাছির মিয়ার ছেলে। পরিবারের অভিযোগ, গেলো ২০ ডিসেম্বর নিমোনিয়া জ্বড়ে আক্রান্ত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

Moulvibazar-Today-Hospital
চিকিৎসা অবহেলায় শিশুর মৃত্যু

শনিবার দুপুর ২টা থেকে শিশুটির কোন সাড়া-শব্দ না পেয়ে কর্তব্যরত নার্সকে জানানো হয়। কিন্তু কর্তব্যরত নার্স বারবার তাকে ফিরিয়ে দিন। বুরহানের বাবা মুক্তাছির মিয়া কর্তব্যরত নার্স শাহিদা বেগমের পায়ে ধরেও কোন কাজ হয়নি। ঘন্টা খানেকপর ৩টার দিকে শিশুটিকে একটি ইনজেকশন কিনে আনার জন্য স্লিপ হাতে ধরিয়ে দেয়।
ইনজেকশন আনার পর শিশুটিকে নেভোলেজেশন দেয়া হয়। নেভোলেজেশন দেয়ার সঙ্গে সঙ্গেই শিশুটি নিস্তেজ হয়ে যায়। পরে অক্সিজেন দেয়া হলেও কোন কাজে আসেনি। শিশুটি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। শিশুর মৃত্যুর পর হাসপাতালের শিশু বিভাগের রেজিষ্টার ডাঃ শহিদুল ইসলাম খাঁন এসে শিশুটিকে মৃত ঘোষনা করেন।
শিশু বুরহানের বাবা জানায়, হাসপাতালে ভর্তির পর থেকেই নানান অজুহাতে চিকিৎসার অনিয়ম হয়। রোগীর আত্মীয়স্বজন বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে শিশুর মরদেহ নিয়ে মৌলভীবাজার মডেল থানায় হাজির হন।
মৌলভীবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ সোহেল আহমদ জানান, শিশুর মৃত দেহ নিয়ে আসার পর পুলিশ ফোর্স পাঠাই। বুরহানের গার্ডিয়ানরা যদি আইনগত ব্যবস্থা নিতে চায়, তাহলে লাশের ময়না তদন্ত করাতে হবে। এখন ময়না তদন্ত করাবে কিনা এই সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি।
লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

আরোও পড়ুন

মৌলভীবাজারে গরু চুরি করে কারাবাসে

মৌলভীবাজারে গরু চুরি করে কারাবাসে
মৌলভীবাজারে মা-মেয়ে ও ছেলে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
মৌলভীবাজারে জরুরী প্রসূতি সেবা কার্যক্রম খাতায় কলমে

Share Button