নানা-নাতির মৃত্যু!

সুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে যাত্রীবাহী নৌকাডুবিতে আজমিরীগঞ্জের নানা-নাতি’র মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। নিহতরা হলেন, আজমিরীগঞ্জ উপজেলার পাহাড়পুর মাটিয়াখাড়া গ্রামের জয়সুন্দর দাস (৫৫) ও তার নাতি (মেয়ের ছেলে) প্রীতম দাস (৯)। প্রীতম দাস দিরাই উপজেলার জারলিয়া গ্রামের রঞ্জিত দাসের ছেলে।

গত শনিবার ২৭ জুন উপজেলার উজাল ধল এলাকায় কালনী নদীতে ঝড়ের কবলে পড়ে যাত্রীবাহী ইঞ্জিনচালিত নৌকাটি ডুবে গেলে এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় কয়েকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে, নিহত জয়সুন্দর দাস দুদিন আগে মেয়ের বাড়ী জারলিয়া গ্রামে বেড়াতে আসেন। শনিবার নাতি প্রীতম দাসকে নিয়ে বাড়ী যাওয়ার জন্য সকাল সাড়ে ৯ টার সময় দিরাই থেকে মার্কুলীগামী ট্রলারে উঠেন। সাড়ে ১০টার দিকে টলারটি ঝড়ের কবলে পড়ে ডুবে যায়। এসময় নৌকাতে থাকা যাত্রীরা সাতরিয়ে ও স্থানীয়দের সহায়তায় তীরে উঠতে পারলেও নৌকার ভেতরে আটকা পড়েন নানা-নাতি। এলাকাবাসী ডুবন্ত নৌকার ভেতর থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করেন।

দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কেএম নজরুল জানান, নৌকায় ১৬ জন যাত্রী ছিল। দুজনের লাশ ও বাকিদের জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে

Share Button